ঢাকা, মঙ্গলবার ১৯শে নভেম্বর ২০১৯ , বাংলা - 

স্থবিরতা কাটাতে আসছে নতুন নেতৃত্ব

নিজস্ব প্রতিবেদক

মঙ্গলবার ২২শে অক্টোবর ২০১৯ সকাল ১০:৪৪:২৩

ঢাকা মহানগর আ'লীগ দক্ষিণের নেতৃত্বে আসছেন ডাঃ জালাল- ডাঃ দিলীপ   নিজস্ব প্রতিবেদক  ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের মূল চালিকা শক্তি ঢাকামহানগর আওয়ামী লীগের স্থবিরতা কাটাতে আসছে নতুন নেতৃত্ব। আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর ঘনিষ্ঠজনদের ইতিমধ্যেই এরকম ইঙ্গিত দিয়েছেন। 

ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ উত্তরের নেতৃত্বে বর্তমান সভাপতি সাদেক খানকে বহাল রেখে সাধারণ সম্পাদক পদে নতুন মুখ নিয়ে আসা হবে।  উত্তরের বিষয়ে চিন্তাভাবনা চূড়ান্ত করা না হলেও ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ দক্ষিণের নেতৃত্ব নির্বাচন বিষয়ে অনেকটা সিদ্ধান্ত নিয়ে রাখা হয়েছে বলে জানা যায়। এখন চলছে  ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ দক্ষিণের কাউন্সিলকে কেন্দ্র করে পদপ্রত্যাশী নেতাদের চলছে দৌড়ঝাঁপ। ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিতব্য আওয়ামী লীগের জাতীয় কাউন্সিলের ১/২ দিন আগে দুই মহানগর আওয়ামী লীগের কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে। 

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন, কেন্দ্রীয় কাউন্সিলের আগের দুদিন মহানগর উত্তর-দক্ষিণ দুটি শাখার কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে। বর্তমান নেতৃত্ব ফের নির্বাচিত হওয়ার সম্ভাবনা উড়িয়ে দিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। তিনি বলেছেন, কেন্দ্রীয় কমিটির মতো মহানগর আওয়ামী লীগকেও ঢেলে সাজানো হবে। সেক্ষেত্রে অর্ধেকেরও বেশী নেতা বাদ পড়ার ইঙ্গিত দিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে নতুন মুখ আসবে। বর্তমান কমিটির বাইরে থেকে সভাপতি এবং বর্তমান কমিটির সম্পাদক মন্ডলীর কোন গুরুত্বপূর্ণ সদস্যকে সাধারণ সম্পাদক হিসাবে দেখা যেতে পারে। 

ঢাকা সিটি করপোরেশন (উওর দক্ষিণ) নির্বাচনকে সামনে রেখে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগকে সুসংগঠিত করা হবে। যেসব কাউন্সিলর মহানগর ও থানা- ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি সাধারণ সম্পাদক পদে রয়েছেন, তাদের হাত থেকে সংগঠন মুক্ত করা হবে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন এর মেয়র পদেও একজন ক্লিন ইমেজের নেতাকে সামনে রেখে ঢাকা মহানগর  আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব নির্বাচনের কথা শোনা গেছে।  আওয়ামী সভাপতি বঙ্গবন্ধু কন্যা  শেখ হাসিনা ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের নেতৃত্বের ওপর অত্যন্ত  নাখোশ। জানিয়েছেন একটি ঘনিষ্ঠ সূত্র। দক্ষিণের সংগঠনকে চাঙ্গা করার জন্য সাবেক কেন্দ্রীয় নেতা ডাঃ মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিনকে সভাপতি করার ইঙ্গিত দিয়েছেন খোদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

 কেন্দ্রীয় কাউন্সিলের সাব কমিটিতে নির্বাহী কমিটির বাইরে এ কারণেই একমাত্র সাবেক নেতা বাংলাদেশ ছাত্রলীগের এককালীন কেন্দ্রীয় সভাপতি ডাঃ মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিনকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। ডাঃ জালাল বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশন (বিএমএ) বর্তমান সভাপতি ও ঢাকার সাবেক জনপ্রিয় সংসদ সদস্য। পুরানো ঢাকার স্থায়ী বাসিন্দা "৬৯ এ জগন্নাথ কলেজের জিএস ও ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি  মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিনকে "৮৭ সালের ঢাকা মহানগর  আওয়ামী লীগের কাউন্সিলে সভাপতি  মোজাফফর হোসেন পল্টুর সঙ্গে সাধারণ সম্পাদক হিসাবে দেখতে চেয়েছিলেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। ডাঃ মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন জুটি  শেষ পর্যন্ত তৎকালীন প্রচার সম্পাদক মোহাম্মদ নাসিমের সঙ্গে সহপ্রচার সম্পাদক নির্বাচিত হন। পরবর্তী কাউন্সিলে ডাঃ মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক নির্বাচিত হন এবং '০৯ সাল পর্যন্ত ওই পদেই আসীন ছিলেন।

 ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের " দেখভাল" করেন এমন একজন প্রেসিডিয়াম সদস্য ইঙ্গিত দিয়েছেন, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ দক্ষিণের বর্তমান যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা ডাঃ দিলীপ রায়কে সাধারণ সম্পাদক হিসাবে নেতৃত্বে আসছেন। সভাপতি পদে তিনিও ডাঃ মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিনের কথা ইঙ্গিত করেছেন। ঢাকা সিটি কর্পোরেশন (দঃ) নির্বাচনে মেয়র পদে ডাঃ মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিনকে প্রার্থী করার চিন্তাভাবনা থেকেই আওয়ামী সভাপতি অগ্রসর হচ্ছেন বলেও এ নেতা জানান। ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ দক্ষিণের বর্তমান নেতাদের মধ্যে সর্বাপেক্ষা ক্লিন ইমেজ রয়েছে ডাঃ দিলীপের। তিনি বিগত আন্দোলন সংগ্রামে বলিষ্ঠ ভুমিকা রাখেন। 

 বিগত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ফরিদপুর -১ আসনের আলোচিত প্রার্থী ছিলেন ডাঃ দিলীপ। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা নেতৃত্বগ্রহণের পরপরই ছাত্রলীগ সংকটের মুখে পড়লে ডাঃ মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতির দায়িত্ব গ্রহণ করেন। একই সময় ঢাকা মহানগর ছাত্রলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় সদস্য ছিলেন দিলীপ রায়। সাধারণ নেতাকর্মীরাও চান ক্লিন ইমেজের নেতাদের দিয়ে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের নেতৃত্বকে ঢেলে সাজাতে না পারলে চলমান সংকট মোকাবেলায় দল ব্যর্থ হবে।

 নেতৃত্বে আসার ব্যাপারে আওয়ামী লীগ নেতা ডাঃ মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন বলেন, এ বিষয়ে আমার কিছু জানা নেই। তবে মাননীয় নেত্রী যখন যে দায়িত্ব দিয়েছেন, তা জীবনপণ বাজি রেখে পালনের চেষ্টা করেছি। মেয়র প্রার্থী হিসাবেও আপনার নাম শোনা যাচ্ছে এমন প্রশ্নের জবাবে বলেন, মাননীয় নেত্রী যাকে মনোনয়ন দিবেন, তিনিই নির্বাচনে লড়বেন। আর বিজয় তো আল্লাহর হাতে। ডাঃ দিলীপ রায় সাধারণ সম্পাদক হওয়ার সম্ভাবনা সম্পর্কে বলেন, সংগঠনের স্বার্থে আওয়ামী লীগ প্রধান যা ভালো মনে করবেন তাই হবে।