ঢাকা, বুধবার ১৫ই জুলাই ২০২০ , বাংলা - 

বিনিয়োগ নিয়ে চীন থেকে ভারতে যাচ্ছে অ্যাপল!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক।।ঢাকাপ্রেস২৪.কম

শুক্রবার ৫ই জুন ২০২০ সকাল ১০:২৮:৩৩

মহামারি করোনা ভাইরাস সংকটে বিশ্বজুড়ে ধুঁকছে ব্যবসা-বাণিজ্য। এ পরিস্থিতিতে চীনের ওপর থেকে নির্ভরশীলতা কমাতে চাইছে বহু সংস্থা। সে দেশ থেকে পাততাড়ি গুটিয়ে পড়শি দেশ ভারতকে উৎপাদন কেন্দ্র হিসেবে বেছে নিতে চাইছে তারা। সেই তালিকায় এবার নতুন সংযোজন হয়েছে প্রখ্যাত মার্কিন প্রযুক্তি জায়ান্ট অ্যাপল। চীন থেকে উৎপাদন ব্যবসার ২০ শতাংশ ভারতে সরিয়ে আনার পরিকল্পনা করছে প্রতিষ্ঠানটি।

সর্বভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যমের সূত্রের বরাত দিয়ে আনন্দবাজার জানিয়েছে, সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী পাঁচ বছরে ভারতে চার হাজার কোটি ডলার বিনিয়োগ করতে পারে অ্যাপল। উইনস্ট্রন এবং ফক্সকন, এই দুই সংস্থার মাধ্যমে ভারতে স্মার্টফোন তৈরি করার পরিকল্পনা রয়েছে তাদের। আবার তা বাস্তবায়িত হলে অ্যাপলই ভারতের বৃহত্তম রপ্তানিকারক সংস্থায় পরিণত হবে।

চীন থেকে ব্যবসা গোটাতে চলা সংস্থাগুলোকে জায়গা করে দিতে ইতোমধ্যেই জমি চিহ্নিতকরণ প্রক্রিয়া শুরু করে দিয়েছে ভারত সরকার। এরমধ্যে অ্যাপলের মতো সংস্থাকে কাছে টানতে প্রস্তুতির কোনো কমতি নেই দেশটির। এ নিয়ে গত বছরের শেষ দিকেই অ্যাপল, স্যামসাং এবং দেশীয় ফোন উৎপাদনকারী সংস্থা লাভার কর্মকর্তাদের সঙ্গে একদফা বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী প্রোডাকশন লিঙ্কড ইনসেনটিভ (পিএলআই) প্রকল্পের কথা তুলে ধরেন। তার আওতায় বেশকিছু শর্তও রাখা হয়। বলা হয়, এই প্রকল্পের আওতায় যে সংস্থা যত বেশি সামগ্রী উৎপাদন করবে, তাদের তত বেশি সুবিধা দেওয়া হবে। সেইসঙ্গে প্রতিটি সংস্থাকে ২০২০ থেকে ২০২৫-এর মধ্যে কমপক্ষে এক কোটি ডলারের সামগ্রী তৈরি করতে হবে বলেও জানানো হয়।

তবে পিএলআই-এর আওতায় বেশকিছু শর্ত নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে মতান্তরও দেখা দেয়। মনে করা হচ্ছে, সেসবের নিষ্পত্তি হয়ে গেলেই চীন থেকে সরিয়ে ভারতে উৎপাদন কেন্দ্র আনতে পারে অ্যাপল। তবে এতে বাধ সাধতে পারে আমেরিকা।

অ্যাপল চীন থেকে ভারতে উৎপাদন কেন্দ্র সরিয়ে আনতে ইচ্ছুক জানতে পেরেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সরব হয়ে বসেছিলেন জানা গেছে। স্থানীয় ফক্স নিউজে সাক্ষাৎকারে তিনি স্পষ্ট জানিয়েছিলেন, উৎপাদন কেন্দ্র সরাতে হলে নিজ দেশেই সরিয়ে আনুক অ্যাপল। অন্যত্র গেলে জরিমানার মুখে পড়তে হবে।