ঢাকা, মঙ্গলবার ১লা ডিসেম্বর ২০২০ , বাংলা - 

বাবরি মসজিদ ধ্বংস ‘পরিকল্পিত নয়,

প্রতিবেশি ডেস্ক।। ঢাকাপ্রেস২৪.কম

বুধবার ৩০শে সেপ্টেম্বর ২০২০ দুপুর ০১:২৬:২৫

রায় তিন দশক ধরে চলে আসা বাবরি ধ্বংস মামলায় অভিযুক্ত সকলকেই খালাস করল আদালত। প্রবীণ বিজেপি নেতা লালকৃষ্ণ আডবাণী, মুরলিমনোহর জোশী, উমা ভারতীর মতো নেতা-নেত্রীদের বিরুদ্ধে মসজিদ ভাঙার ষড়যন্ত্র, পরিকল্পনা ও উস্কানি দেওয়ার অভিযোগ ছিল। বুধবার লখনউয়ের বিশেষ সিবিআই আদালতে তার রায় ঘোষণা করতে গিয়ে বিচারক সুরেন্দ্রকুমার যাদব জানান, অভিযুক্তদের কারও বিরুদ্ধে উপযুক্ত কোনও প্রমাণ মেলেনি। তাই তাঁদের বেকসুর খালাস করা হল। একই সঙ্গে, বাবরি ধ্বংসের ঘটনা পূর্ব পরিকল্পিত নয় বলেও জানিয়ে দেন বিচারক।

লাইভ আপডেট—

ক্স অভিযুক্তরা মন্দির ভাঙায় বাধা দিয়েছিলেন বলে মন্তব্য করেন বিচারক।

ক্স প্রমাণের অভাবে সকলকে মুক্তি দিলেন বিচারক সুরেন্দ্রকুমার যাদব।

ক্স বাবরি ধ্বংস মামলায় অভিযুক্ত ৩২ জনকেই বেকসুর খালাস করল আদালত।

ক্স বাবরি ধ্বংস পূর্ব পরিকল্পিত নয়, বললেন বিচারক।

ক্স রায় পড়ছেন বিচারক সুরেন্দ্রকুমার যাদব।

ক্স ভিডিয়ো কনফারেন্সের মাধ্যমে আদালতে হাজিরা লালকৃষ্ণ আডবাণী, উমা ভারতীদের। ভিডিয়ো কনফারেন্সে যোগ দেননি মুরলিমনোহর জোশী।

ক্স সওয়া ১১টা পর্যন্ত ২৬ জন অভিযুক্ত আদালতে পৌঁছন।

ক্স আদালতে হাজিরা দেওয়া থেকে অব্যাহতি পেলেন লালকৃষ্ণ আডবাণী, মুরলিমনোহর জোশী, উমা ভারতী, কল্যাণ সিংহ, সতীশ প্রধান এবং রামমন্দির ট্রাস্টের প্রধান নৃত্যগোপাল দাস। ভিডিয়ো কনফারেন্সের মাধ্যমে আদালতে হাজিরা দেবেন তাঁরা।

ক্স সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত ৩২ জন অভিযুক্তের মধ্যে ১৮ জন আদালতে পৌঁছন।

ক্স আজ রায় ঘোষণার পরই অবসর নেবেন বিচারক সুরেন্দ্রকুমার যাদব।

ক্স রামমন্দির ট্রাস্টের প্রধান নৃত্যগোপাল দাস আদালতে হাজির থাকবেন না।

ক্স সেইসময় কেন্দ্রে কংগ্রেসের সরকার ছিল বলেই বিষয়টি  নিয়ে এত হইচই। একটা ইমারতই তো ভেঙেছে! আমি অপরাধী নই। যা হব‌ে দেখা যাবে, বললেন অভিযুক্ত বিনয় কাটিয়ার।

ক্স সাধ্বী ঋতাম্ভরা আদালতে পৌঁছলেন।

ক্স আদালতে পৌঁছলেন সাক্ষী মহারাজ।

ক্স বিচারক সুরেন্দ্রকুমার যাদব আদালতে পৌঁছলেন।

ক্স লখনউ সিবিআই আদালতের বাইরে আঁটোসাটো নিরাপত্তা।

রায় ঘোষণার সময় অভিযুক্তদের সশরীরে আদালতে হাজির থাকতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু নোভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এই মুহূর্তে হৃষীকেশের হাসপাতালে ভর্তি উমা ভারতী। অতিমারির মধ্যে বয়সজনিত কারণে লালকৃষ্ণ আডবাণী এবং মুরলিমনোহর জোশী আদালতে যাবেন না বলে জানিয়েছেন আডবাণীর সচিব দীপক চোপড়া। আদালত ব্যবস্থা করলে ভিডিয়ো কনফারেন্সের মাধ্যমে তাঁরা আদালতে হাজিরা দেবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। বাবরি মসজিদ ধ্বংসের সময় উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন কল্যাণ সিংহ। তিনিও ভিডিয়ো কনফারেন্সের মাধ্যমেই আদালতে হাজিরা দিতে চান বলে খবর।

বাবরি ধ্বংস মামলায় মোট ৪৯ জন অভিযুক্তের মধ্যে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের অশোক সিঙ্ঘল, শিবসেনার বাল ঠাকরে, অযোধ্যার পরমহংস রামচন্দ্র দাসের মতো ১৭ জন ইতিমধ্যে প্রয়াত। বাকি ৩২ জনের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করছেন আইনজীবী কেকে মিশ্র। তিনি বলেন, ‘‘রায় ঘোষণার সময় কে আদালতে উপস্থিত থাকবেন আর কে থাকবেন না, এখনই তা বলা সম্ভব নয়।  ৩০ সেপ্টেম্বর রায় ঘোষণা হবে। তা সকলকেই জানিয়েছিলাম। রায় ঘোষণার সময়ই জানা যাবে কে উপস্থিত রয়েছেন আর কে নেই।’’

তবে স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছে, আডবাণী-জোশী এবং উমা ভারতীর মতো কয়েক জন আদালতে হাজিরা না দিলেও, ৩২ জনের মধ্যে ২৬ জন অভিযুক্ত রায় ঘোষণার সময় আদালতে উপস্থিত থাকতে পারেন। তার জন্য আদালত চত্বরের নিরাপত্তা আঁটোসাটো করা হয়েছে। অভিযুক্তরা, তাঁদের আইনজীবী এবং সিবিআইয়ের আইনজীবীরা ছাড়া আর কারও আদালতে ঢোকার অনুমতি নেই। একটি মাত্র ফটক দিয়েই আদালতে ঢোকা যাবে। অযথা যাতে জটলা না তৈরি হয়, তার জন্য আদালত সংলগ্ন রাস্তাগুলিতে ব্যারিকেড বসানো হয়েছে। যান চলাচলের ব্যবস্থা করা হয়েছে অন্য রাস্তা দিয়ে।