ঢাকা, শুক্রবার ১৪ই ডিসেম্বর ২০১৮ , বাংলা - 

মাদ্রাসার ২ হাজার নতুন ভবন করবে সরকার

ষ্টাফ করেসপন্ডেন্ট ।। ঢাকাপ্রেস২৪.কম

মঙ্গলবার ২৭শে মার্চ ২০১৮ বিকাল ০৩:৫৯:০৫

সারাদেশে দুই হাজার মাদ্রাসায় নতুন ভবন নির্মাণ করতে যাচ্ছে সরকার। এ লক্ষ্যে ‘দেশজুড়ে নির্বাচিত মাদ্রাসায় নতুন ভবন নির্মাণ প্রকল্প’ নামে একটি প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। এর আওতায় সারাদেশের প্রত্যেকটি সংসদীয় আসনের জনপ্রতিনিধি (এমপি) কমপক্ষে ছয়টি করে মাদ্রাসায় ভবন নির্মাণ কাজের দায়িত্ব পাবেন।

প্রকল্প সূত্রে জানা গেছে, সরকারি অর্থায়নে প্রকল্পটি বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৭ হাজার ৫৯৫ কোটি ৩২ লাখ টাকা। বাস্তবায়ন হবে ২০২০ সালের জুনের মধ্যে। প্রকল্পের ২ হাজার মাদ্রাসার মধ্যে সারাদেশের ৩০০ এমপি দায়িত্ব পাবেন কমপক্ষে ছয়টি করে মাদ্রাসায় ভবন নির্মাণের। বাকি মাদ্রাসাগুলোর ভবন নির্মাণের বিষয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও এমপিরা বৈঠক করে সিদ্ধান্ত নেবেন। শিক্ষার্থী সংখ্যা অনুযায়ী বাকি মাদ্রাসায় ভবন নির্মাণের কাজ এমপিদের মধ্যে বণ্টন করা হবে।

প্রকল্প সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলছেন, নতুন এ প্রকল্পের মাধ্যমে মাদ্রাসা শিক্ষার উন্নয়নে ভবনগুলোতে সব ধরনের আধুনিক শিক্ষা পদ্ধতির ব্যবস্থা করা হবে। তথ্য ও প্রযুক্তির বিষয়ে শিক্ষা দানে প্রতিটি নতুন ভবনে মাল্টিমিডিয়া ক্লাস রুম ও কম্পিউটার ল্যাব থাকবে। প্রতিটা ভবন হবে পাঁচতলা। তবে ফাঁকা থাকবে নিচতলা। শিক্ষার্থীদের সংখ্যার ওপর নির্ভর করবে ভবনের আকার-আয়তন।

এরইমধ্যে মাদ্রাসায় নতুন ভবন নির্মাণ সংক্রান্ত এ প্রকল্পের প্রস্তাবনা পরিকল্পনা কমিশনে পাঠিয়েছে মাদরাসা শিক্ষা অধিদফতর। এর সম্ভাব্যতা ও প্রযোজনীয়তা নিয়ে গত ২৫ ফেব্রুয়ারি সংশ্লিষ্টদের নিয়ে প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটির (পিইসি) সভাও অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় সভাপতিত্ব করেন পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য (সচিব) ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ।

পিইসি সভা প্রসঙ্গে পরিকল্পনা কমিশনের শিক্ষা উইংয়ের সহকারী প্রধান মুনিরা ইসলাম  বলেন, মাদ্রাসা ভবনের উন্নয়নে একটি প্রকল্পের বিষয়ে পিইসি সভা হয়েছে। সভায় প্রাথমিকভাবে এটা অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। তবে প্রকল্পের ডিপিপিতে (উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাবনা) কিছু পর্যবেক্ষণ দেওয়া হয়েছে। এগুলো ঠিক করে নিয়ে এলেই জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় এই প্রস্তাবনা উপস্থাপন করা হবে।

মাদ্রাসা ভবন নির্মাণের জন্য ৩০০ এমপি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে কারিগরি ও মাদ্রাসা বিভাগে ডিও (ডিমান্ড অব অর্ডার) লেটার বা চাহিদাপত্র দেন। তারা সংশ্লিষ্ট এলাকার মাদ্রাসার দৈন্যদশা ও জরাজীর্ণতার কথা উল্লেখ করে জরুরি ভিত্তিতে বিদ্যমান মাদ্রাসায় নতুন ভবন নির্মাণের জন্য এ চাহিদাপত্র দিয়ে আবেদন করেন। এরই প্রেক্ষিতে দুই হাজার মাদ্রাসায় নতুন ভবন নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

প্রকল্পটির বিষয়ে মাদরাসা শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক বিল্লাল হোসেন  বলেন, মাদ্রাসায় নতুন ভবন নির্মাণের বিষয়ে সারাদেশের সংসদ সদস্যরা মন্ত্রণালয়ে ডিও লেটার পাঠিয়েছেন। তাদের চাহিদার আলোকেই মাদ্রাসায় ভবন নির্মাণ সংক্রান্ত প্রকল্প প্রস্তুত করেছি। চাহিদা অনুযায়ী এমপিরা বিদ্যমান মাদ্রাসায় নতুন ভবন নির্মাণের বরাদ্দ পাবেন।

এর আগে, দেশের ৩০০ সংসদীয় এলাকার প্রত্যেকটিতে ১০টি করে মোট ৩ হাজার বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অবকাঠামোগত উন্নয়নের পরিকল্পনায় একটি প্রকল্প অনুমোদন দেয় সরকার। ‘নির্বাচিত বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়সমূহের উন্নয়ন’ নামে ১০ হাজার ৬৪৯ কোটি ৫ লাখ ২৮ হাজার টাকা ব্যয়ের প্রকল্পটির আওতায় প্রত্যেক এমপি ১০টি করে স্কুল ভবন নির্মাণ কাজ বরাদ্দ পান। ওই প্রকল্পের বাস্তবায়ন মেয়াদ ধরা হয়েছে ২০২০ সালের জুন পর্যন্ত।